পাবনায় স্কুল থেকে খাজা নাজিমউদ্দিনের নাম মুছে দিল ছাত্রলীগ

ঈশ্বরদীর ছাত্রলীগ বাংলাদেশ রেলওয়ে নাজিউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের সাইনবোর্ড থেকে নাজিমউদ্দিনের নাম মুছে দিয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে পোষ্ট অফিস মোড় হতে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা শহরের লোকোরোডে অবস্থিত ওই স্কুলের নাম মুছে দেয়। এসময় তারা ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদ এবং চক্রান্তকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীও জানিয়েছেন।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে ওই স্কুলের সামনে অনুষ্ঠিত পথসভায় ছাত্রলীগ সভাপতি রাকিবুল হাসান রনি বলেন, ১৯৫২ সালের ২৭ জানুয়ারি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খাজা নাজিমুদ্দীন করাচি থেকে ঢাকায় আসেন। তিনি পল্টন ময়দানে এক জনসভায় বলেন যে, পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা হবে কেবল উর্দু। তাঁর সময়েই ২১শে ফেব্রুয়ারীতে মিছিলে গুলিবর্ষণ করে রাজপথ রক্তে রঞ্জিত হয়েছিল। তাই বঙ্গবন্ধুর বাংলায় রক্তখেকো নিজামউদ্দিনের নামে কোন প্রতিষ্ঠান থাকবে না। তারা আরো বলেন, এই স্কুলের নাম পরিবর্তনের জন্য বারংবার পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে দপ্তরে দাবী জানানো হলেও আজবধি এই দাবী বাস্তবায়ন হয়নি।

সাধারণ সম্পাদক সুমন দাস বলেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য উপকমিটির সাবে সদস্য সাকিবুর রহমান কনকের নির্দেশে আজকের এই কর্মসুচি পালন করা হলো। এসময় তিনি এলাকার ৫ বারের জাতীয় সংসদ সদস্য, ভাষা সৈনিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত জননেতা শামসুর রহমান শরীফের নামে ওই রেলওয়ে স্কুলের নামকরণের দাবী জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, বিগত বছরে ঈশ্বরদী প্রেসক্লাবে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসের আলোচনা সভায় বক্তারা ওই রেলওয়ে স্কুলের নাম পরিবর্তনের দাবী জানিয়েছিলেন।

পথসভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিবুল হাসান রনি। সঞ্চলনা করেন সাধারণ সম্পাদক সুমন দাস। বক্তব্য রাখেন, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম শাওন, কলেজ শাখার সভাপতি খোন্দকার মো: আরমান। এসময় পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ড ও ৭টি ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।